ব্যবসায়ীদের অর্থ ফেরতের রায় বহাল

প্রতিবেদক : বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে নেয়া ১২০০ কোটি টাকা ফেরত দিতে হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ফলে ওই অর্থ এখন ব্যবসায়ীদের ফেরত দিতে হবে বাংলাদেশ ব্যাংককে।

বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের করা আবেদন খারিজ করে দিয়ে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতে ব্যবসায়ীদের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আহসানুল করীম। ব্যাংকের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম। এর আগে বুধবার এ বিষয়ে শুনানি শেষ হয়।

বিভিন্ন সূত্র মতে, ওই সময়ে ৪০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান থেকে ১২শ’ কোটি টাকার বেশি নেওয়ার খবর প্রকাশ হলেও হাইকোর্টে কেবল ১১টি রিট করা হয়েছে। যারাই রিট করেছেন এখন কেবল তারাই এ সুবিধা পাবেন। ১১ রিটের বিপরীতে মোট অর্থ হলে ৬১৫ কোটি ৫৫ লাখ টাকা।

সেনা সমর্থিত সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৭ সালের এপ্রিল থেকে ২০০৮ সালের নভেম্বর পর্যন্ত জরুরি অবস্থার সময়ে গোয়েন্দা কর্মকর্তারা প্রায় ৪০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এক হাজার ২৩২ কোটি টাকা আদায় করেন। এ টাকা দুই শতাধিক পে-অর্ডারের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকে সরকারের ০৯০০ নম্বর হিসাবে জমা হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৭ সালের এপ্রিল থেকে ২০০৮ সালের নভেম্বরের মধ্যে প্রায় ৪০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ১২০০ কোটি টাকার বেশি অর্থ আদায় করা হয়। যা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা রয়েছে। ক্যাফেলি ডেটেড টি অ্যান্ড ল্যান্ড লিমিটেড এবং এস আলম স্টিল লিমিটেড এ বিষয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করে। আদালত রিটকারীর পক্ষে রায় দেয়।

২০১০ সালের ২৪ আগস্ট ওই রায়ে ক্যাফেলি ডেটেড টি অ্যান্ড ল্যান্ড লিমিটেডের ২৩৭ কোটি টাকা এবং এসআলম স্টিল লিমিটেডের কাছ থেকে ৬০ কোটি টাকা নেয়াকে অবৈধ ঘোষণা করে আদালত।

একই সাথে তিন মাসের মধ্যে ওই অর্থ ফেরত দিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়। পরে বাংলাদেশ ব্যাংক এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করলে হাইকোর্টের রায় স্থগিত করে আপিল বিভাগ। সেই রায় প্রকাশের দিন ধার্য ছিল আজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *