সাংবাদিক গোলাম সারোয়ারের ৭৪তম জন্মদিন পালন

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটকম : বাংলাদেশের সংবাদপত্রের সাফল্য ও পেশাদারি সাংবাদিকতার প্রতীক দৈনিক সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের আজ (১ এপ্রিল, শনিবার) ৭৪তম জন্মদিন। সমকাল পরিবার ঘরোয়াভাবে তার জন্মদিন পালন করে।
সমকালের নির্বাহী সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি দ্য রিপোর্টকে বলেন, ‘গোলাম সারওয়ার শুধু সমকাল সম্পাদক নন, তিনি বাংলাদেশের সাংবাদিকতায় প্রবীণতম জীবন্ত কিংবদন্তি। আমরা তার সুস্থ-সুন্দর দীর্ঘজীবন কামনা করি।’
মুস্তাফিজ শফি আরও বলেন, ‘আমার দেখা সবচেয়ে একটিভ সম্পাদক গোলাম সারওয়ার। তিনি আপাদমস্তক একজন নিউজম্যান। সবসময় তিনি সংবাদের সঙ্গেই থাকেন।’
১৯৪৩ সালের এই দিনে বরিশালের বানারীপাড়ায় গোলাম সারওয়ার জন্মগ্রহণ করেন। বাবা মরহুম গোলাম কুদ্দুস মোল্লা ও মা মরহুম সিতারা বেগম।
তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। ছাত্রাবস্থায় ১৯৬২ সালে চট্টগ্রামের দৈনিক আজাদীর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি হিসেবে সাংবাদিকতা শুরু করেন। পরের বছর দৈনিক সংবাদের সহ-সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন।
গোলাম সারওয়ার মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন নিজ এলাকা বানারীপাড়ায়। মুক্তিযুদ্ধের পর কয়েক মাস বানারীপাড়া ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশনে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭২ সালে সিনিয়র সহ-সম্পাদক (শিফট ইনচার্জ) হিসেবে যোগ দেন দৈনিক ইত্তেফাকে। এখানে প্রধান সহ-সম্পাদক, যুগ্ম-বার্তা সম্পাদক ও বার্তা সম্পাদক পদে ছিলেন তিনি। ২৭ বছর কর্মজীবন শেষে তিনি ১৯৯৯ সালে ইত্তেফাক ছেড়ে যুগান্তরের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদকের দায়িত্ব নেন। ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠা করেন দৈনিক সমকাল। সাংবাদিকতার দীর্ঘ ৫০ বছর পথপরিক্রমার পাশাপাশি গোলাম সারওয়ার সাহিত্য-সংস্কৃতির ক্ষেত্রেও রেখেছেন উজ্জ্বল অবদান। তিনি সংস্কৃতি বিষয়ক সাপ্তাহিক পূর্বাণীর নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেন। চলচ্চিত্র সাংবাদিকদের সংগঠন ‘বাচসাস’-এর সাধারণ সম্পাদকও নির্বাচিত হন।
ষাটের দশকে সাংবাদিকতার শুরু থেকে একটানা ৫০ বছর তিনি এই পেশায় মেধা, যুক্তিবোধ, পেশাদারিত্ব, দায়িত্বশীলতা, মুক্ত ও অসাম্প্রদায়িক চিন্তা-চেতনার নিরবচ্ছিন্ন চর্চা করে চলেছেন। মুক্তিযু্দ্ধের পক্ষে তিনি বরাবর আপোসহীন ও অকুতোভয়। সংবাদপত্রের অন্যতম প্রধান স্তম্ভ বার্তা বিভাগে গোলাম সারওয়ারের সৃজনশীলতা, সংবাদবোধ ও তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা উদাহরণ হিসেবে গণ্য।
‘সাংবাদিকদের শিক্ষক’ গোলাম সারওয়ারের হাতেগড়া পাঁচ শতাধিক সাংবাদিক এখন দেশের বিভিন্ন পত্রিকা ও টিভি মিডিয়ায় কাজ করছেন। তার হাতে সরাসরি কাজ শেখা বেশ কয়েকজন সাংবাদিক এখন দৈনিক পত্রিকা ও টেলিভিশন মিডিয়ার সম্পাদক, প্রধান সম্পাদক হিসেবে যোগ্যতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন।
ষাটের দশকে অসংখ্য ছড়া লিখেছেন গোলাম সারওয়ার। ‘রঙিন বেলুন’ নামে শিশু একাডেমি তার একমাত্র ছড়ার বইটি প্রকাশ করে। তার নানা স্বাদের লেখার সমারোহে সমৃদ্ধ ‘সম্পাদকের জবানবন্দি’, ‘অমিয় গরল’, ‘আমার যত কথা’, ‘স্বপ্ন বেঁচে থাক’ প্রভৃতি।
গোলাম সারওয়ার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড ও আপিল কমিটির সদস্য। বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটিটিউটের চেয়ারম্যান(পিআইবি), চলচ্চিত্র অনুদান কমিটি ও সম্প্রচার খসড়া নীতিমালা প্রণয়ন কমিটিরও সদস্য তিনি। এছাড়া বাংলা একাডেমির আজীবন সদস্য, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি, বানারীপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি।
রাজধানীর খ্যাতনামা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উত্তরা হাইস্কুল এ্যান্ড কলেজের সভাপতি হিসেবে ১৮ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করেছেন। গোলাম সারওয়ার বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) পরিচালক ছিলেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হয়ে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, ভারত, পাকিস্তান, ডেনমার্ক ছাড়াও বহু দেশ সফর করেছেন।
গোলাম সারওয়ার সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদানের জন্য ২০১৪ সালে একুশে পদক লাভ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *