অতিরিক্ত পানি পান, সবাই সাবধান!

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটকম, ঢাকা: বেশি বেশি পানি খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো- এ কথা কে না জানেন? এরপরও সাবধান করে দিলেন ডাক্তাররা। খুব বেশি পানি খাওয়া ক্ষতিকরও হতে পারে। সাউথ লন্ডনের কিংস কলেজ হসপিটালের চিকিৎসকদের কাছে আসলেন ৫৯ বছর বয়সী এক নারী। অতিরিক্ত পানি খেয়ে তিনি চরম অসুস্থ হয়ে পড়েন। ওই নারীর নাম প্রকাশ করা হয়নি। তার মূত্রনালীতে সংক্রমণ ধরা পড়ে। এর পরই তিনি বেশি বেশি পানি খেতেন। কারণ এর আগে অনেক চিকিৎসকই তাকে বেশি করে পানি খেতে বলেছেন। প্রতি ৩০ মিনিট অন্তর তিনি ২৫০ মিলিলিটার পানি পান করতেন। পরীক্ষায় দেখা যায়, তিনি প্রচণ্ডভাবে লবণের অভাবে ভুগছেন। খুব কম সময়ে অতিরিক্ত পানি খাওয়ার কারণে এ অবস্থা সৃষ্টি হয়।
তার অন্যান্য সমস্যার মধ্যে ছিল অবসাদ, বমি, মাথাব্যথা। আরো বেগতিক হলে মস্তিষ্ক স্ফীত হওয়ার মতো মারত্মক সমস্যাও হতে পারত।দেহে অতিমাত্রায় লবণের ঘাটতির কারণে মানুষের মৃত্যুর ঝুঁকি ৩০ শতাংশ বেড়ে যায় বলে জানান বিশেষজ্ঞরা।বিএমজে কেস রিপোর্টে বিশেষজ্ঞরা জানান, কতটুকু পানি খেলে তাকে বেশি বলা যায় সে সম্পর্কে তেমন গবেষণাই হয়নি।বিশেষজ্ঞরা জানান, যখন ওই নারী হাসপাতালে আসেন তখনই তাকে জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়। তার অবস্থা খুবই নাজুক ছিল। কয়েকবার বমি করেন এবং প্রলাপ বকছিলেন। কথা বলতেও সমস্যা হচ্ছিল তার।
তাকে বাঁচাতে সক্ষম হয়েছেন ডাক্তাররা। যেকোনো তরল গ্রহণ বন্ধ করে দেওয়া হয় পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার জন্য। পরে তিনি জানান, আমি হঠাৎ করেই অসুস্থবোধ করি। চোখের সামনে দেখলাম আমার হাত কাঁপছে। কিন্তু একে থামাতে পারছিলাম না। আমার গোটা দেহ কাঁপতে শুরু করে। চিকিৎসা শেষে আরো এক সপ্তাহ কেটে যায় তার স্বাভাবিক বোধ করতে।
চিকিৎসকরা জানান, এর আগে গ্যাস্ট্রোএন্টেরিটিসে ভোগা এক তরুণী অতিরিক্ত পানি খাওয়ার কারণে মারা যান।দুই ডাক্তার ড. লরা ক্রিস্টিন এবং ড. মারিয়ান নোরোহা জানান, আমরা সব সময় মানুষকে বেশি বেশি পানি খেতে বলি। কিন্তু আসলে অতিরিক্ত পানি ক্ষতিকর হয়ে ওঠে। অতিরিক্ত তরল গ্রহণের কারণে দ্বিধা, বমি এবং কথা বলতে সমস্যা হওয়ার মতো লক্ষণ প্রকাশ পায়। রক্তে সোডিয়ামের মাত্রা কমে যাওয়ার কারণে মারাত্মক কিছু ঘটে যেতে পারে।
আসলে বেশি পানি গ্রহণের কথা বলা হয় যেন পানির অভাব দেখা না দেয়। তবে এর জন্য খুব বেশি পানি খাওয়ার দরকার হয় না। দিনে সাধারণত ৮ গ্লাস পানি খাওয়াই যথেষ্ট- এ ধারণা অনেক আগে থেকেই চলে আসছে।

তবে অতিরিক্ত পানি খেলেও যে সমস্যা হতে পারে, সে বিষয়টি সম্পর্কে মানুষের ধারণা থাকতে হবে। আর এ দায়িত্ব চিকিৎসকদের ওপরই বর্তায়।

সূত্র : ডেইলি মেইল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *