প্রেম ঠেকাতে মেয়েকে পিটিয়ে ও গুলি করে হত্যার চেষ্টা

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটকম, ঢাকা: পরিবারের সম্মান রক্ষার নামে নিজের কিশোরী মেয়েকে প্রথমে পিটিয়ে ও পরে গুলি করে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। এ কাজে বাবাকে সাহায্য করেছে তার আরেক ছেলে। বর্তমানে মেয়েটির জীবন সংকটাপন্ন। তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। শুক্রবার ভোররাতে ভারতের উত্তর প্রদেশের ছোট্ট একটি গ্রাম সম্ভলপুরে এ হত্যা চেষ্টা করা হয়। মেয়েটির অপরাধ সে একই গ্রামের এক তরুণকে গোপনে ভালোবাসতো।
খবরে জানা গেছে, রুবি (১৮) নামে একটি মেয়ে একই গ্রামের ইব্রাহিমকে (২৪) গত তিন বছর ধরে ভালোবাসতো। কিন্তু পরিবারের সদস্যরা এ খবর জানতো না। হঠাৎ করে ঘটনাটি জানতে পারলে রুবির বাবা ও এক ভাই প্রথমে তাকে বেদম মারধর করে। এরপর দুইবার মুখে ও বুকে গুলি করে হত্যার চেষ্টা চালায়। এ সময় মেয়েটির চিৎকারে পাড়াপ্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন এবং পুলিশকে খবর দেন।খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে রুবির বাবা সেমেরাজ (৫২) ও ভাই ইফতেখারকে (৩২) আটক করে। মেয়েটিকে মারাত্মক আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ৪০ কিলোমিটার দূরে মুরাদাবাদ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আসমোলি থানার পুলিশ কর্মকর্তা ব্রহ্মাপাল সিং বলিয়ান সংবাদমাধ্যমে জানান, এটি পারিপারিক সম্মান রক্ষায় মেয়েকে হত্যার চেষ্টা, যাকে ‘অনার কিলিং’ বলা হয়। এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা ও ভাইকে আটক করা হয়েছে। তিনি বলেন, মেয়েটি জানিয়েছে, ইব্রাহিমের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্কের কথা জানাজানি হলে তার বাবা ও ভাই তাকে প্রথমে বেদম মারপিট করে। পরে তার মুখে ও বুকে গুলি করা হয়। তার চিৎকার শুনে পাড়াপ্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন এবং পুলিশে খবর দেয়। তাকে পুলিশি পাহারায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার জীবন সংকটাপন্ন। জেলা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. জিতেন্দ্র সিং বলেন, রুবিকে অর্ধচেতন অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। এসময় তার শরীর থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। তার ব্লাড প্রেসার অত্যন্ত কম এবং কথা বলার ক্ষমতা নেই বললেই চলে। তিনি জানান, একটি গুলি রুবির মুখের বাঁদিকের কানের কাছে লেগেছে। অন্যটি ডানবুকে ঢুকেছে। রুবির বাবা ও ভাইকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৭ ধারায় আটক করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, মেয়েকে হত্যা চেষ্টার জন্য পরিবারের সব সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *