আল-আকসা মসজিদের নীচে বৈঠকের ধৃষ্ঠতা দেখাল ইসরাইল

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটকম, আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মুসলমানদের প্রথম ক্বেবলা আল-আকসা মসজিদের তলদেশে খোঁড়া টানেলে প্রথমবারের মতো মন্ত্রিসভার বৈঠক করেছে ইহুদিবাদী ইসরাইল। ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস ও স্বশাসন কর্তৃপক্ষ এ ঘটনাকে ‘উস্কানি’ বলে এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। মক্কার মসজিদুল হারাম এবং মদীনার মসজিদে নববীর (সা.) পর মুসলমানদের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান আল-আকসা মসজিদ।
দখলদার ইসরাইলের মন্ত্রিসভা পূর্ব জেরুজালেম আল-কুদস দখলের ৫০তম বার্ষিকীতে রোববার এই মসজিদের পশ্চিম দেয়ালের নীচের ভূগর্ভস্থ টানেলে নিজের সাপ্তাহিক বৈঠক করেছে। বৈঠকে পূর্ব জেরুজালেমে খনন ও নির্মাণকাজে অতিরিক্ত বাজেট বরাদ্দ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ইহুদিবাদী প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু।ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাম্প্রতিক জেরুজালেম সফরের পর এই ধৃষ্ঠতা দেখানোর সাহস পেয়েছে দখলদার ইসরাইল।হামাসের মুখপাত্র আব্দুল লতিফ আল-কানু বলেছেন, আল-আকসার তলদেশে ইসরাইলি মন্ত্রিসভার বৈঠক একটি বিপজ্জনক ও উস্কানিমূলক পদক্ষেপ এবং এ থেকে প্রমাণ হয়, গোটা জেরুজালেম আল-কুদসকে ইহুদিকরণ করতে চায় তেল আবিব।

তিনি এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাতে মুসলিম ও আরব দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, এই ধৃষ্ঠ ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে যদি স্বশাসন কর্তৃপক্ষ ফের কোনো আলোচনায় বসে তাহলে তা হবে মুসলিম বিশ্বের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা ও ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ।ইহুদিবাদী ইসরাইল ১৯৬৭ সালের যুদ্ধে জর্দান নদীর পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেম আল-কুদস দখল করে নেয়। এই পূর্ব জেরুজালেমে আল-আকসা মসজিদ অবস্থিত। অবৈধভাবে দখলের পর থেকেই এই মসজিদের তলদেশে অসংখ্য টানেল খননের পাশাপাশি এই এলাকায় বহু অবৈধ বসতি স্থাপন করেছে তেল আবিব।ইসরাইলি মন্ত্রিসভার রোববারের অভিনব পদক্ষেপের প্রতিবাদ জানিয়ে স্বশাসন কর্তৃপক্ষের সিনিয়র কর্মকর্তা সায়েব এরিকাত বলেছেন, “ইসরাইল আল-আকসা মসজিদের তলদেশে সাপ্তাহিক বৈঠক করে যে উস্কানি দিয়েছে আমরা কঠোরতম ভাষায় তার নিন্দা জানাচ্ছি। ”
সায়েব এরিকাত আরো বলেন, “দখলদারিত্বের ৫০তম বার্ষিকী উদযাপনের জন্য পবিত্র মাহে রমজানকে বেছে নিয়ে ইসরাইল। এর মাধ্যমে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু ফিলিস্তিনি জনগণকে এই সুস্পষ্ট বার্তাটি দিয়েছেন যে, পদ্ধতিগত উপায়ে তাদের অকাট্য অধিকার লঙ্ঘনের ধারা অব্যাহত থাকবে। ”
ফিলিস্তিনি এই কর্মকর্তা আরো বলেন, ইসরাইল যে ফিলিস্তিনি ভূমি ও জনগণের ওপর তার দখলদারিত্ব, নিপীড়ন ও সাম্রাজ্যবাদকে বৈধতা দিতে চায় আল-আকসা মসজিদের তলদেশে বৈঠক করে তাই প্রমাণ করল নেতানিয়াহুর মন্ত্রিসভা।

সূত্র: পার্সটুডে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *