ঈদ ফ্যাশনে ছেলেদের পোষাক

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটকম, ঢাকা : মুসলিম বিশ্বের সবচেয়ে বড় উৎসব ঈদ । আর ক’দনি পরেই আসছে ঈদ ৷ ঈদ মানে খুশি , ঈদ মানে আনন্দ । নতুন একটি চাঁদ প্রতিটি মুসলমান এর ঘরে খশীর র্বাতা নয়ে আসে।এই উৎসবটি র্ধমীয় হলে ও এটি মুসলমানদের আনন্দ উদযাপনের অন্যতম উপলক্ষ ।আর এই আনন্দটাকে আরও দ্বিগুন করে দেয় নতুন পোশাক।ঈদের আনন্দ কেনাকাটা ছাড়া হয়না।তাইতো ঈদের আনন্দকে ছাপিয়ে তুলতে চাই বাজার জুরে ঘোরাঘুরি আর শপিংকরে বাড়ি ফেরা।ঈদে ছেলেদের কেনাকাটার ঝোক মেয়েদের থেকে ও কোনো অংশে কম নয়। তাই যেমন-তেমন একটি পোশাক কিনলেই ঈদ হয়ে যাবে এমন ধারনা গত হয়েছে অনেক আগেই।রোজা শুরু হওয়ার পর থেকেই ছেলেদের কেনাকাটাও বাড়ছে অনেকাংশ।এবার শুধু পাঞ্জাবিতেই থেমে থাকছে না ঈদআনন্দ।বরং সময়োপযোগী নান্দনিক সব র্শাট, টি-র্শাট ও সেজে উঠছে ছেলেদের ঈদ বাজার।ছেলেদের ফ্যাশনে পরির্বতনের ছোঁয়া জাগিয়ে তুলতে নতুন কাট ও ডিজাইনের ভিওিতে জেগে উঠছে রাজধানীর বিভিন্ন বিপনিবিতান, শপিংমল ও বিভিন্ন ফ্যাশন হাউজ। তা ছাড়া এবারের ঈদ গরমের মধ্যে পড়ায় গরমে ছেলেদের জন্য সবচেয়ে আরামদায়ক পোশাক হচ্ছে টি-র্শাট ।এখন গোল গলা ও কলারসহ দুই ধরনরে টি-র্শাটই বেশ চলছে।ডজিাইনেও রয়েছে বেশ ভ্যারিয়েশন।টি-র্শাটগুলোতে হাফ হাতার নীচের দিকে ও কলারে ভিন্ন কাপড়ের ব্যবহার চলছে। এসব ছাড়াও ফতুয়া কাটের গলা তার পাশে বোতাম বেশ চলছ। হাতা বা নীচের দিকে পাইপিং দেয়ায় এসছে বাড়তি নতুনত্ব। কাঁধে বা হাতায় একাধিক মোটা সেলাই দেখা যাচ্ছে।নীচের দিকে সর্ম্পূণ গোল বা হালকা কাটা। আর রঙের কথা বলতে গেলে বলতে হবে সব উজ্জ্বল রঙের সমাহার।তবে রাজধানীর শপিংমল গুলো ঘুরে দেখা যায়, ছেলেদের র্শাট, প্যান্ট, জুতা, পাঞ্জাবি এবং ফতুয়ার বিভিন্ন কালেকশন এনেছে বিভিন্ন ব্র্যান্ড। নিজস্ব ব্র্যান্ড ছাড়াও অ্যাডিডাস, অ্যামরেকিান ঈগল, এফোর, পুমা, ডিজলে, অ্যাডওর্য়াডস কিংবা জকির মতো বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ডের র্শাট পাওয়া যাচ্ছে রাজধানীর ঈদ বাজারে।তাছাড়া আমাদের দেশ ছাড়া ও বিভিন্ন মুসলিম দেশের মানুষের সংস্কৃতিগত ব্যাভধানের কারনে ঈদে ছেলেদের পোষাকে এসেছে বৈচিএতা।তাহলে জেনে নেওয়া যাক, কোন দেশের ছেলেরা ঈদে কোন ধরনের পোশাক পরতে পছন্দ করে।সিরিয়ার ছেলেদের একটি ঐতিহ্যবাহী পোশাকের নাম কাফতান । লম্বা কোটের মত দেখতে পোষাকটি থাকে লম্বা হাতা ।মিশরের ঐতিহ্যবাহী ঈঈদের পোষাক গ্যালিবায়া (gallibaya) ।গ্যালিবায়া এক ধরনের লম্বা ঝোলা র্শাট ।গ্যালিবায়া ”র উপড়ে কাফতান মিশরের ছেলেদের খুব প্রিয় ।পায়ের পাতা র্পযন্ত লম্বা এবং চওড়া হাতার গাউনের মত ।এ পোশাকটির নাম জুব্বা । মিশরও সৌদি আরবের ছেলেদের প্রধান পোশাক এটি ।ইউরোপিয়ান পোষাকের সহজলভ্যতার কারনে দিন-দিন ঐতিহ্যবাহী সাজসজ্জা ঢাকা পরতে থাকলেও ঐতিহ্যবাহী র্তাবোস (Tarboosh) টুপির প্রচলন এখনও অনেক বেশী। পাঞ্জাবী অথবা শেরওয়ানীর সাথে একটি (Tarboosh) টুপি ঈদ আনন্দরে উপলক্ষকে বাড়িয়ে দেয়। এবারের ঈদে তাপ নিরোধকের জন্য পোশাক নির্বাচনের আরকেটি গুরুত্বর্পূন বিষয় হচ্ছে রঙ নির্বাচন। গরমে খুব উজ্জ্বল আর গাঢ় রং মোটওে শোভন নয়। বরং হালকা রং যেমন— সাদা, হালকা গোলাপ,বেগুনী, আকাশী,সবুজ, ধূসর চোখের জন্য যেমন আরামদায়ক তেমনি এগুলো তাপও শোষণ করে কম। এ ক্ষেএে সাদা হতে পারে আর্দশ রং। এছাড়াও জলপাই সবুজ, নীলাভ আকাশি, হালকা হলুদ, হালকা ম্যাজন্টো এ রংগুলোর হালকা শেড গরমে উপযোগী। এ সময় খুব গাঢ় রঙ নর্বিাচন না করাটাই ভালো। কেননা কড়া রঙে তাপ খুব বেশী লাগে বলে গরম অনুভবটা বেশী মনে হয়। বিশেষ করে কালো রঙের পোশাক অতরিক্তি তাপ শোষণ কর।তাই এ রঙের কাপড় পরধিান না করাই ভালো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *