ভারত-পাকিস্তান ফাইনাল শুরু উত্তেজনায়

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটকম, ঢাকা: ফাইনালটা কি বারুদে ঠাসা হবে? আরে তেমনটা না হলে আর বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা আসরের ফাইনাল কেন, কেনইবা সেটি সেই মঞ্চে চিরশত্রু ভারত-পাকিস্তান লড়াই! টস হেরে ওভালে রোববার পাকিস্তান নেমেছে এবারের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচের ফাইনালে ব্যাট করতে। ভারত শুরুতেই হামলে পড়তে চাইছে। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ছে প্রথম বল থেকেই। ভুবনেশ্বর কুমারের প্রথম ওভারটি মেডেন। জসপ্রিত বুমরাহ দ্বিতীয় ওভারে একটি ওয়াইডসহ ৩ রান দিলেন। পরের ওভারে একটি এজ, স্লিপের সাথে আহা উহু দুরত্ব রেখে। এরপরই রান আউটের বলটা ব্যাটসম্যানের কানের পাশ থেকে ছুটে যায়। আরো নাটক পরের ওভারের দ্বিতীয় বলে। বুমরাহ আউট করে দিলেন বিপজ্জনক ফখর জামানকে! ক্যাচ উইকেটের পেছনে! নাহ। ওটা যে নো বলে ক্যাচ আউট! তাহলে আর আউট কোথায়? তবে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে স্টেডিয়াম ঠাসা ভক্ত দর্শকদের মাঝে। সেই সাথে স্যাটেলাইট হয়ে বিভিন্ন স্ক্রিনের সামনে।
ফখর বেঁচে গেছেন। কিন্তু চাপে যে পাকিস্তান আছে তা তো বুঝেই গেছেন সবাই। গ্রুপপর্বে পাকিস্তান ১২৪ রানে বৃষ্টি আইনে হেরেছিল ভারতের কাছে। আর চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াইয়ের ম্যাচে ৪ ওভার শেষে কোনো উইকেট না হারিয়ে তাদের সংগ্রহ ১৯ রান। খফর ৮ ও আজহার আলি ৭ রানে ব্যাট করছেন। এই ম্যাচে ভারত একাদশে কোনো পরিবর্তন আসেনি। পাকিস্তান একাদশে মোহাম্মদ আমির ফিরেছেন রুম্মন রইসের জায়গায়।
ভারত এখানে হটকেক, টুর্নামেন্টের আগে থেকে তারাই আর সবার থেকে ফেভারিট। টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়নও তারা। এবার শিরোপা জিতে টানা দুবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অস্ট্রেলিয়ান রেকর্ড স্পর্শ করবে তারা। তবে গড়বে নতুন ইতিহাস। সেটি প্রথম দল হিসেবে তিনবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়।
ভারত যখন এতোটা এগিয়ে তখন এটাই পাকিস্তানের প্রথম চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ফাইনাল। বিশ্বকাপ তারা জিতেছে, টি-টুয়েন্টি বিশ্ব আসরের শিরোপাতেও চুমু খেয়েছে কিন্তু বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা এই আসরের সেমি-ফাইনালের বাধা পেরিয়েছে এই প্রথম। অনেক ঝড় পেরিয়ে উঠেছে ফাইনালে। গ্রুপপর্বের প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে হেরেছিল। সেটির প্রতিশোধ তুলে শিরোপাটাও ঘরে তুলতে পারে কি না সেটাই এখন প্রশ্ন।
বিরাট কোহলির ভারত ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং তিন বিভাগেই দুর্ধর্ষ। সেমিতে যে দল ৯ উইকেটে জিততে পারে তাদের শক্তি সম্পর্কে কারো প্রশ্ন থাকা উচিৎ না। যেমন তাদের ব্যাটিং লাইন আপ, তেমন বোলিং। ফিল্ডিংও। পাকিস্তান ঠিক এই সময়ে সেরা বোলিং বা ব্যাটিং নিয়ে নামতে পারছে না। ফিল্ডিং নিয়ে ঝামেলা তো বরাবর। তাদের কম্বিনেশনে সমস্যা আছে, সেট কিছুও নয়। কিন্তু ঐতিহ্যগতভাবে ওরা আনপ্রেডিক্টেবল। সেটাই ঘটছে এবং কাজে আসছে। সরফরাজ আহমেদের পাকিস্তান দল কি করবে?
ভারত-পাকিস্তান একবারই আইসিসি আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছে এর আগে। সেটি ২০০৭ প্রথম টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ। যেখানে পাকিস্তানকে হারিয়ে এমএস ধোনির ভারত হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন।
এই ম্যাচে ভারত একাদশে কোনো পরিবর্তন নেই। পাকিস্তান একাদশে মোহাম্মদ আমির চোট থেকে ফিরেছেন। রুম্মন রইস তাই দলের বাইরে।
ভারত একাদশ : বিরাট কোহলি, শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা, যুবরাজ সিং, এম এস ধোনি, কেদার যাদব, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, জসপ্রিত বুমরাহ ও ভুবনেশ্বর কুমার।
পাকিস্তান একাদশ : সরফরাজ আহমেদ, আজহার আলি, ফখর জামান, মোহাম্মদ হাফিজ, বাবর আযম, শোয়েব মালিক, ইমাদ ওয়াসিম, শাদাব হাসান, হাসান আলি, মোহাম্মদ আমির ও জুনায়েদ খান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *