হিমাচলে ভূমিধসে সরকারি বাস খাদে পড়ে ৪৮ জন নিহত

টাইমস আই বেঙ্গলী ডটকম, ভারত থেকে: ভারতের হিমাচল প্রদেশে ভূমিধসে দুটি সরকারি বাস খাদে পড়ে অন্তত ৪৮ জন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় রোববার প্রদেশের মানদি রাজ্যে এ ঘটনা ঘটনা ঘটে বলে প্রাদেশিক কর্মকর্তারা জানান। ভূমিধসের সময় বাস দুটিতে অর্ধশতাধিক যাত্রী ছিল। এ কারণে নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে। সরকারি কর্মকর্তাদের বরাতে এনডিটিভি জানিয়েছে, মান্দি-পাঠানকোট জাতীয় মহাসড়ক ধরে চলার সময় বাস দুটি হিমাচলের পাধার এলাকার নিকটবর্তী কোটপুরিতে ভূমিধসের শিকার হয়। প্রায় ২৫০ মিটার এলাকা জুড়ে ধসের ঘটনা ঘটে। এর ফলে সরকারি বাস ছাড়াও আরও দুটি যানবাহন চাপা পড়ে এবং কয়েকটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
ধসের ঘটনায় মহাসড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে উল্লেখ করে কর্মকর্তারা জানান, ঘটনাস্থলে শত শত গাড়ি আটকা পড়ে আছে। ধসের ঘটনায় ৪৮ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ২৩ জনের পরিচয় শনাক্ত করা গেছে।
হিমাচল প্রদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক ডি ডি শর্মা বলেন, কয়েকজনের মরদেহ বিকৃত হয়ে যাওয়ায় তাদের পরিচয় শনাক্তের জন্য ঘটনাস্থলে একটি ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ দলকে পাঠাতে বলা হয়েছে। রাজ্যের একজন কর্মকর্তা জানান, ভূমিধসের খবর পাওয়ার পরপরই ঘটনাস্থলে উদ্ধার অভিযান শুরু হয়। কিন্তু আবারও ধসের আশংকায় রোববার সন্ধ্যায় উদ্ধার কাজ বন্ধ রাখা হয়। আজ সোমবার ফের অভিযান শুরু হবে বলে জানান তিনি।
দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থলে জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বাহিনী (এনডিআরএফ), সেনাবাহিনী ও পুলিশ সদস্যদের পাঠানো হয়। খাদে ধ্বংসস্তূপে চাপা পড়া বাস দুটি উদ্ধারে মাটি সরানোর জন্য ভারি সরঞ্জাম পাঠাতে বলা হয়েছে। এরই মধ্যে প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বীরভদ্র সিং ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নিহত শেষ ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করা পর্যন্ত অভিযান চালাতে নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেন, দুর্ঘটনায় আহত যাত্রীদের চিকিৎসার ব্যয়ভার সরকার বহন করবে।এদিকে নিহতদের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাদের পাঁচ লাখ টাকা করে অনুদান দেয়ারও ঘোষণা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ভূমিধসে প্রাণহানির ঘটনায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি শোক জানিয়েছেন। রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কাউল সিং ঠাকুর, পরিবহনমন্ত্রী জি এস বালি এবং পল্লী উন্নয়ন ও পঞ্চায়েতি মন্ত্রী অনিল শর্মা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *